ছবি ও ভিডিও সম্পাদনায় কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআই ব্যবহার বর্তমানে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে। তবে এর নেতিবাচক ব্যবহারও বাড়ছে। এআই নির্ভর ডিপফেক প্রযুক্তি নতুন দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটি ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে স্ক্যামাররা।


প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট এনগ্যাজেটের প্রতিবেদনে জানা যায়, সম্প্রতি স্ক্যামাররা ডিপফেক ব্যবহার করে হংকংয়ের একটি বহুজাতিক কোম্পানি থেকে ২ কোটি ৫৬ লাখ ডলার হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির একজন চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসারের ডিপফেক তৈরির মাধ্যমে এ অর্থ হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।


এআই প্রযুক্তির মধ্যে ডিপফেকের অপব্যবহারের ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। হংকংয়ের অর্থ চুরির ঘটনায় স্ক্যামাররা ভিডিও কলের মাধ্যমে ডিপফেকের সহায়তায় চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার সেজে কোম্পানি থেকে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। স্ক্যামাররা ভিডিও কলের মাধ্যমে ভুক্তভোগীকে পাঁচটি স্থানীয় ব্যাংক অ্যাকাউন্টে মোট ২ কোটি ৫৬ লাখ ডলার স্থানান্তর করার নির্দেশ দেয়। অর্থ স্থানান্তর শেষ হলে ভিডিও কলটি হঠাৎ করে কেটে যায়। ঘটনার প্রায় এক সপ্তাহ পর কোম্পানির কাছে স্ক্যামের ঘটনাটি প্রকাশ পায়।


ছবি, অডিও এবং ভিডিও তৈরিতে বর্তমানে ডিপফেক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। ডিপফেক হলো এআই নির্ভর এমন এক প্রযুক্তি যার মাধ্যমে যেকোনো ভিডিও, ছবি এবং অডিও রেকর্ডিংয়ে মানুষের মুখমণ্ডল বা কণ্ঠস্বর নকল করা যায়।


এরই মধ্যে স্ক্যামের ঘটনার বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিয়েছে হংকং পুলিশ। স্ক্যামের পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।